ফরিদপুর যৌন পল্লী থেকে উদ্ধার এক কিশোরী

0
108
  1. ফরিদপুর যৌন পল্লী থেকে উদ্ধার এক কিশোরী

ঢাকার কিশোরীকে ফরিদপুর যৌন পল্লী থেকে উদ্ধারtharealnews, ফরিদপুর: রাজধানী ঢাকার মিরপুর বিহারী কোলনি থেকে নিয়ে আসা এক কিশোরীকে শনিবার ভোরে ফরিদপুর রথখোলা যৌন পল্লী থেকে উদ্ধার করা হয়েছে।

এ সময় আটক করা হয়েছে রাসেল ব্যাপারী নামে যুবককে। তার বাড়ি সিরাজগঞ্জ জেলায়। বাবার নাম সাইফুল ব্যাপারী বলে জানিয়েছেন তিনি।

১৪ বছরের কিশোরী জানায়, গত ৩/৪ মাস আগে ১১নং মিরপুর বিহারী এলাকার এক পীরের কাছে যাওয়া-আসার সুবাদে রাসেল ব্যাপারীর সঙ্গে তার পরিচয় হয়। সে পরিচয় থেকে ঘনিষ্ঠতা। তারপর ভালোবাসার সম্পর্ক। সেখান থেকে গত শুক্রবার রাসেলের কথা মতো তার হাত ধরে বাড়ি থেকে বের হই।

মেয়েটি জানায়, শুক্রবার রাত ৩টার দিকে তারা বাসে করে ফরিদপুর বাস স্ট্যান্ডে আসে। শনিবার ভোর ৬টার দিকে রাসেল তাকে রিকশাযোগে নিয়ে আসেন যৌন পল্লীতে। তিন বোনের মধ্যে সে সবার ছোট।

এ ব্যাপারে রাসেল ব্যাপরী বলেন, ‘আমার বাড়ি সিরাজগঞ্জে। ঢাকার মিরপুর ১১ নম্বারে ফয়সাল রাইস মিলে চাকরি করি। গত দুই বছর ধরে ওর সঙ্গে আমার পরিচয়। ওর বাবাই ওকে আমার হাতে তুলে দিয়েছে। আমি এখানে আমার এক পরিচিত ব্যক্তির কাছে নিয়ে আসি থাকার জন্য।’

ফরিদপুর শাপলা মহিলা সংস্থার কর্মী সাথী বলেন, ‘আমরা এখানে নির্যাতিত মেয়েদের সার্বিক সহযোগিতার জন্য কাজ করি। মেয়েটিকে ঢাকা থেকে এখানে আনা হয়েছিলো জোরপূর্বক দেহ ব্যবসায় বাধ্য করার জন্য। আমরা তার সাহায্যে এগিয়ে এসেছি।’

একই সংস্থার কর্মী আসাদ বলেন, ‘খুব ভোরে মেয়েটিকে নিয়ে রাসেলকে যৌন পল্লীতে ঘোরাফেরা করতে দেখে আমার প্রথমে সন্দেহ হয়। পরে আমি মেয়েটিকেসহ রাসেলকে ধরে শাপলা সংস্থায় নিয়ে আসি। আমি রাসেলকে আগে থেকেই চিনি। সে এই যৌন পল্লীতে অনেকবার যাওয়া আসা করেছে। সে যৌন পল্লীর মর্জিনা বাড়ির আলীর সঙ্গে নারী ব্যবসায় জড়িত অনেক দিন ধরে।’

এ ব্যাপারে ফরিদপুর কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাজিমুদ্দিন বলেন, ‘বিষয়টি আমরা অবগত হয়েছি। আমাদের কাছে অভিযোগ আসলে অবশ্যই এ ব্যাপারে আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

Comments

comments

SHARE