সদরপুরে প্রবাসীর স্ত্রীকে ফাঁদে ফেলে পর্ণ ভিডিও ধারণ।

0
651

কানিজ ফাতেমা আদুরি চরভদ্রাসন প্রতিনিধি: ফারিদ পুর। ফরিদপুরের সদরপুর উপজেলার
কৃষ্ণপুর ইউনিয়নের ঠেংগামারী গ্রামের
সৌদি প্রবাসীর সুন্দরী স্ত্রী পলি
আক্তার (৩০)কে প্রেমের ফাঁদে ফেলে
পর্ণ ভিডিও ধারণ করে নেটে দেয়ার
হুমকি দিয়ে মোটা-অংকের চাঁদা দাবী
করে আত্মহত্যার প্ররোচনা করার ঘটনা
ঘটেছে। এলাকার পুলিশের তালিকাভুক্ত
একটি চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে
উক্ত ঘটনা ঘটানোর অভিযোগ উঠলেও
থানা পুলিশ নীরব ভূমিকা পালন করছে।
গত ১০দিনেও উক্ত বর্বরোচিত ঘটনার
আইনগত সহযোগিতা না পাওয়ায় নিহতের
স্বামী শাহজাহান মোল্যা বর্তমানে
স্বপরিবারে নিরাপত্তাহীনতায় জীবন
কাটাচ্ছে।
সরেজমিনে তথ্য সংগ্রহ ও এলাকাবাসির
অভিযোগে জানা গেছে, উপজেলার
ঠেংগামারী গ্রামের সৌদি প্রবাসী
শাহজাহান মোল্যার সুন্দরী স্ত্রী
২সন্তানের জননী পলি আক্তারের প্রতি
নজর পড়ে নগরকান্দা উপজেলার ডাংগী
ইউনিয়নের বিলগোবিন্দপুর গ্রামের মৃত
কাশেম সরদারের পুত্র এলাকার বহু
অপকর্মের নায়ক ডিস ব্যবসায়ী তারেক
সরদারের। পলির স্বামী বিদেশ থাকার
সুযোগে তার ঠেংগামারী স্বামীর
বাড়িতে রাত্রি যাপন করত। এক পর্যায়ে
পলির ইচ্ছার বিরুদ্ধে যৌন উত্তেজনা
ঘটিয়ে তার পর্ণ ভিডিও ধারণ করে।
পলির স্বামী বিদেশ থেকে ঘটনাটি
লোকমুখে সংবাদ পেয়ে বাড়িতে আসে।
ইতোমধ্যে পলির পোস্ট ডিপোজিট
কাগজপত্র ও ব্যাংকের চেকবই তারেক
সরদার ছিনিয়ে মোটা অংকের চাঁদা
দাবী করে। চাঁদা না দিলে তারেক পর্ণ
ভিডিও তার স্বামীর নিকট দিবে ও
এলাকায় মোবাইল নেটে ছেড়ে দেয়ার
হুমকি প্রদান করে। এছাড়া এলাকার কিছু
সংখ্যক চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের দিয়ে
পলির স্বামী-সন্তানকে হত্যার হুমকি
প্রদান করে। অবশেষে পলি আক্তার
নিরুপায় হয়ে গত ১৭মে দিবাগত গভীর
রাতে বসত ঘরের ফ্যানের সাথে গলার
ওড়না দিয়ে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা
করে। পুলিশ গত ১৮মে সকালে লাশ উদ্ধার
করে মর্গে প্রেরণ করে। এব্যাপারে
সদরপুর থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা
রেকর্ড করা হয়েছে। মামলা নং-১০ তাং
১৮/০৫/২০১৭ইং। এঘটনা নিয়ে নিহত পলি
আক্তারের স্বামী শাহজাহান মোল্যা
জানান, এলাকার দুস্কৃতকারী আমার
স্ত্রীকে ট্যাপে ফেলে টাকা পয়সা
হাতিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। পরে পর্ণ
ভিডিও প্রকাশের ভয় দেখিয়ে মোটা
অংকের চাঁদা দাবী করে। আমাকে ও
সন্তানদেরকে হত্যার ভয় দেখিয়ে আমার
স্ত্রীকে আত্মহত্যা করতে বাধ্য করে।
কৃষ্ণপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বিল্লাল
হোসেন ফকির আমাদের সংবাদদাতাকে
জানান, তারেক সরদার পুলিশের
তালিকাভূক্ত সন্ত্রাসী। তার বিভিন্ন
অপকর্মে এলাকার বহু নারী পুরুষ জিম্মি
হয়ে পড়েছে। এধরণের বহু অপকর্মে তারেক
এখনো জড়িত। মামলার তদন্তকারী
অফিসার সদরপুর থানার এসআই মানিক
জানান, আমরা লোকমুখে অনেক কিছুই
শুনেছি। লিখিত কোন অভিযোগ বা পর্ণ
ভিডিওর প্রমাণ পায়নি। সাক্ষ্য পেলে
আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। ইউডি
মামলার তদন্ত চলছে। নিহতের স্বামী
শাহজাহান মোল্যা স্ত্রী পলি
আক্তারের আত্মহত্যার
প্ররোচনাকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত
ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট
কর্তৃপক্ষের নিকট জোর দাবী
জানিয়েছে।
ছবি: দুই সন্তানসহ পলি আকতার

Comments

comments

SHARE