বিপাকে হাজার হাজার বাংলাদেশি দালালদের কারণেই বাহরাইনে

0
48

মধ্যপ্রাচ্যের ছোট্ট দ্বীপ দেশ বাহরাইরে এ পর্যন্ত ফ্রি ভিসায় যাওয়া ৪০ হাজার বাংলাদেশির ভিসা বাতিল হয়ে গেছে। দেশটিতে বাংলাদেশি কিছু দালাল আছে যারা নানা ধরনের অপকর্মের সঙ্গে জড়িত, আর তাদের কারণেইে আজ অসংখ্য বাংলাদেশির এই দুরাবস্থা। ভয়েস বাংলার সাথে সাক্ষাৎকারে এসব কথা জানান বাহরাইনে প্রতিষ্ঠত বাংলাদেশি রেস্টুরেন্ট ব্যবসায়ী ও বাহরাইন প্রবাসী পাবনা জেলার সভাপতি হায়াত উল্লাহ।
তিনি জানান, বাহরাইনে ফ্রি ভিসার কোনো বৈধতা নেই, তাই শ্রমিকদের নির্ধারিত একটি কাজের চুক্তিতে যেতে হয় বাহরাইনে, চুক্তি ছাড়া অন্য যে কোনো কাজও অবৈধ। কিন্তু দালালরা আইনের তোয়াক্কা না করে কাজের সুযোগ না থাকা সত্ত্বেও ফ্রি ভিসার নামে শ্রমিক এনে ছেড়ে দিচ্ছে বাহরাইনে। দালালরা দুই বছর মেয়াদী ভিসার কথা বলে আনলেও ৫-৬ মাস পরই তা বাতিল হয়ে যাচ্ছে। সেই স্থানে আবার নতুন লোককে ভিসা দিয়ে নেওয়া হচ্ছে দেশটিতে। আর নতুন লোকদেরও থাকা খাওয়ার জায়গা ও কর্মসংস্থান প্রকট আকার ধারণ করছে।
হায়াত উল্লাহ বলেন, সেখানে এখন অনেক বেকার, ফ্রি ভিসায় যারা গেছে তারাই মূলত বিপদে আছে। সরকারিভাবে ফ্রি ভিসার অনুমোদন নেই। ফলে, তাদেরকে ধরপাকড়ের মুখোমুখি হতে হয়। গুনতে হয় অনেক টাকা। হায়াতউল্লাহ আরো জানান, বাহরাইন যাওয়া বাংলাদেশিদের ইংরেজি ভাষায় দক্ষতা না থাকায় বাহরাইনের প্রথম শ্রেনীর বা ভালো কাজগুলো পাকিস্তানি, ভারতীয়দের কাছে চলে যায়। বাহরাইনের কোনো কোম্পানি সরাসরি বাংলাদেশ থেকে নিয়োগ দেয় না। সেখানে গিয়ে পারফরমেন্স ভালো হলে ওরা স্থায়ী করে নেয় বলেও জানান তিনি।

বাহরাইনে অবস্থান করা মনির বলেন, সাড়ে চার লাখ টাকা দিয়ে আসছি, আমাকে বলছে দুই বছর মেয়াদী ভিসা, কিন্তু আসার পর আমাকে ১ বছরের ভিসা দিয়েছে তাও আবার ৪-৫ মাস ক্যানসেল হয়ে যায়। আরেক প্রবাসী রশিদ জানান, তিনি বাংলাদেশ থেকে আসার ৪ মাস পার হয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত কোনো কাজ পাননি। নোয়াখালীর আবদুর রহিম বলেন, আড়াইমাস হলো এদেশে আসছি, কোনো কাজ পাচ্ছি না, খেতেও পারছি না। এদিকে বাহরাইনে প্রতিদিনই গ্রেপ্তার হচ্ছে শতশত অবৈধ লোক।

এ বিষয়ে বাহরাইনের রাষ্ট্রদূত কে এম মমিনুর রহমান বলেন, যারা অথরিটি আছেন তাদের সঙ্গে কথা বলে প্রতিকারগুলো বের করতে হবে, না হলে যে পরিমান অবৈধ বাংলাদেশিরা দেশে চলে যেতে বাধ্য হচ্ছে তাদের হাজার হাজার পরিবার ধ্বংসের মুখে পড়ে যাবে। এ কারণে আমি সাময়িকভাবে বাহরাইনে আসার ভিসা স্থগিত করেছি।

ভূক্তভোগীরা বলেন, আমাদের মতো ভুল করে কোনো বাংলাদেশিরা যেন বাহরাইনে না আসে।

Comments

comments

SHARE