তামিমের রেকর্ড ভাঙল রকিবুল

0
39

ব্যাট হাতে রীতিমতো আবাহনীর বোলারদের তুলোধুনো করলেন রকিবুল হাসান। একের পর এক বলকে বাউন্ডারি-ছাড়া করেছেন দীর্ঘদিন ধরে বাংলাদেশ জাতীয় দলের বাইরে থাকা এই ব্যাটসম্যান। তবে অন্যান্যরা তাকে যোগ্য সাপোর্ট দিতে না পারায়  আবাহনীর কাছে অসহায় আত্মসমর্পন করতে হল মোহামেডানকে। বিকেএসপিতে রানবন্যার ম্যাচে মোহামেডানকে ২৭ রানে হারিয়েছে আবাহনী।

বিকেএসপির-৪ নম্বর মাঠে আগে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৫ উইকেট হারিয়ে ৩৬৬ রানের বড় সংগ্রহ গড়ে আবাহনী। জবাবে ব্যাটিংয়ে নেমে রকিবুলের রেকর্ডগড়া ১৯০ রানের অনবদ্য ইনিংস সত্ত্বেও নির্ধারিত ওভার শেষে ৯ উইকেটে ৩৩৯ রানে আটকে যায় মোহামেডান।

পাঁচ নম্বরে ব্যাটিংয়ে নেমে ১৯০ রানের ‘দানবীয়’ ইনিংস খেলেন রকিবুল। ১৩৮ বলে ১৭টি চার ও ১০টি ছক্কার সাহায্যে ১৯০ রানের অনবদ্য ইনিংস উপহার দেন তিনি। দারুণ ব্যাটিংয়ের দিন তামিম ইকবালকে (১৫৭) পেছনে ফেলে ‘লিস্ট এ’ ম্যাচে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের মধ্যে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত রানের ইনিংস খেলার রেকর্ড গড়েন রকিবুল।

রানবন্যার ম্যাচে রকিবুল ‘ঝড়’ তুললেও তাকে যোগ্য সঙ্গ দিতে পারেননি চারিথ আসালানকা ছাড়া মোহামেডানের অন্য কোনো ব্যাটসম্যান। আসালানকা ৬০ বলে ৬৩ রান করেন। রনি তালুকদার ১৯, অভিষেক মিত্র ৩ এবং জাভেদ হোসেন করেন ৫ রান।

আবাহনীর হয়ে মনন শর্মা সর্বোচ্চ পাঁচটি উইকেট নেন। এছাড়া কাজী অনিক দুটি এবং মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন ও সাকলাইন সজীব নেন একটি করে উইকেট।

এর আগে বিকেএসপির-৪ নম্বর মাঠে আগে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৫ উইকেট হারিয়ে ৩৬৬ রানের বড় সংগ্রহ গড়ে আবাহনী। লিটন-শান্তর জোড়া সেঞ্চুরির পর দলের তারকা অলরাউন্ডার শুভাগত হোম চৌধুরী ৫০ ছুঁই ছুঁই ইনিংস খেলেন।

১০৩ বলে ১৫টি চার ও ২টি ছক্কার সাহায্যে ১৩৫ রান করে আউট হন লিটন। শান্ত ১০০ বলে ৩টি চার ও ৬টি ছক্কার সাহায্যে খেলেন ১১০ রানের ঝলমলে ইনিংস। এছাড়া শুভাগত ৪৮, সাদমান ইসলাম ২৮ এবং সাইফ হাসান করেন ২৯ রান।

মোহামেডানের হয়ে সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট নেন তাইজুল ইসলাম। একটি করে উইকেট নেন কামরুল ইসলাম রাব্বি ও শামসুর রহমান।

Comments

comments

SHARE