চরভদ্রসনে পদ্মা নদী থেকে উদ্ধার হলো এক ছাত্রের লাশ

0
114

ফরিদপুরের চরভদ্রাসনে পদ্মা নদীতে গত শুক্রবার বিকেলে ডুবে যাওয়া দুই বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রের একজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল বিকেল পাঁচটার দিকে পরিবারের সদস্যরা ওই লাশটি উদ্ধার করে।
উদ্ধার হওয়া মৃতদেহটি ঢাকার ফার্মগেট এলাকায় অবস্থিত এশিয়া প্যাসিফিক বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্সের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী শাওন সরকারের (২২)। শাওন মানিকগঞ্জের সদরের রত্মাদিয়া গ্রামের নিতাই চন্দ্র সরকারের ছেলে।
সরজমীনে গিয়ে তার পরিবারের সদস্যদের সাথে কথা বলে জানা যায় ডুবরীরা চলে যাওয়ার পরও তারা হাল না ছেড়ে রবিবার দুটি যন্ত্রচালিত টলারে করে সারাদিন খোঁজার এক পর্যযায়ে বিকেল পাচটায় শাওনের ডুবে যাওয়ার জায়গায় প্রথমে মাথা দেখতে পান। পরে তার মৃতদেহটি উদ্ধার করা হয়। 
চরভদ্রাসন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রাম প্রসাদ ভক্ত ঘটনা স্থলে উপস্থিত হয়ে চরঝাউকান্ধা ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের সহায়তায়  তার পরিবারের সদস্যদের হাতে মৃতদেহটি হস্তান্তর করেন। 
প্রসঙ্গত গত শুক্রবার ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩৪ জন শিক্ষার্থী ফরিদপুরের চরভদ্রসন উপজেলার ঝাউকান্দা ইউনিয়নের পদ্মানদীর চরে পিকনিক করতে আসেন। তারা বিকেলে পদ্মা নদীতে জেগে ওঠা চরে ফুটবল খেলতে শুরু করেন। এক পর্যায়ে বলটি নদীর পানিতে পড়ে গেলে চার শিক্ষার্থী বলটি উদ্ধার করতে নদীতে নামেন। এর মধ্যে দুজন পানি থেকে পাড়ে উঠতে পারলেও বাকি দুজন তলিয়ে যান।
গতকাল ডুবে যাওয়া শিক্ষার্থী শাওনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হলেও ডুবে যাওয়া অপর শিক্ষার্থী মিজানুর রহমান ওরফে মিঠু (২৪) এখনও নিখোঁজ রয়েছেন। মিজানুরও এশিয়ান প্যাসিফিক বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্সের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী।
ওসি রাম প্রসাদ ভক্ত বলেন, এ ঘটনার পর শুক্রবার রাত ৮টা থেকে ১১টা পর্যন্ত এবং পরদিন শনিবার সকাল ৬টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত ঢাকার দমকল বাহিনীর চার ডুবরি সদস্য পানিতে নেমে ডুবে যাওয়া ওই শিক্ষার্থীদের উদ্ধার করতে ব্যর্থ হন।
শাওন সরকারের কাকা বিকাশ সরকার জানান, দুই ভাইবোনের মধ্যে শাওন ছোট। গত শুক্রবার শাওন তাঁর কলেজের আরও ৩৩জন শিক্ষার্থীর সাথে পিকনিক করতে ফরিদপুরের চরভদ্রসনে পদ্মা নদীর চরে এসেছিল।

Comments

comments

SHARE