আওয়ামী লীগ নেতা বেলাল হোসেনের বাড়ি থেকে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র উদ্ধার

0
43

বোয়ালখালী উপজেলার সারোয়াতলীতে ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা বেলাল হোসেনের বাড়ি থেকে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ সময় সাইফুদ্দিন বাপ্পি নামে গ্রেফতার এক সন্ত্রাসীকে পুলিশের কাছ থেকে ছিনিয়ে নিয়েছে দুর্বৃত্তরা। তাদের হামলায় তিন পুলিশ সদস্য আহত হন। সাইফুদ্দিন ইউপি চেয়ারম্যানের ভাই। বৃহস্পতিবার রাত ১১টা থেকে শুক্রবার বেলা ১১টা পর্যন্ত চেয়ারম্যানের বাড়িতে অভিযান চালানো হয়। অভিযানে অংশ নেয় বায়েজিদ, চান্দগাঁও ও বোয়ালখালী থানা পুলিশ।

মহানগর পুলিশের উপকমিশনার (উত্তর) আবদুল ওয়ারীশ জানান, বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে সন্ত্রাসী সাইফুদ্দিনকে দুইটি বিদেশি পিস্তলসহ গ্রেফতার করে বায়েজিদ থানা পুলিশ। বায়েজিদ থানার আমিন জুট মিলস সংলগ্ন পেট্রল পাম্পের সামনে থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে সাইফুদ্দিন পুলিশকে জানায়, তাদের বোয়ালখালীর বাড়িতে অস্ত্র ও অস্ত্র তৈরির সরঞ্জাম রয়েছে। এরপর রাত সাড়ে ১০টার দিকে মহানগর পুলিশের সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার (পাঁচলাইশ) এস এম মোবাশ্বের হোসেনের নেতৃত্বে বায়েজিদ, চান্দগাঁও ও বোয়ালখালী থানা পুলিশ অস্ত্র এবং অস্ত্র তৈরির সরঞ্জাম উদ্ধার করতে বোয়ালখালীর সারোয়াতলী ইউনিয়নের হোরারবাগ এলাকায় বেলাল চেয়ারম্যানের বাড়িতে যায়। এ সময় ওই বাড়ির কাচারি ঘরের উত্তর পাশের কক্ষ থেকে একটি বিদেশি রিভলবার, শাটার গান, এয়ারগান, চাইনিজ কুড়াল, চারটি রামদা, ১৬টি ছোট বড় ছোরা, অস্ত্র তৈরির বিভিন্ন সরঞ্জাম উদ্ধার করে পুলিশ। রাত ১১টার দিকে পুলিশ সাইফুদ্দিন বাপ্পী ও জব্দকৃত অস্ত্র নিয়ে চেয়ারম্যান বাড়ির এলাকার পুকুরঘাটে পৌঁছলে সাইফুদ্দিনের ছোট ভাই সালাউদ্দিন রুমিসহ ৫০ থেকে ৬০ দুর্বৃত্ত পুলিশের ওপর হামলা চালায়। এ সময় সাইফুদ্দিনকে তারা ছিনিয়ে নিয়ে যায়। তাদের হামলায় বায়েজিদ থানার এসআই মোহাম্মদ আইয়ুব উদ্দিন, এসআই এইচ এম এরশাদ উল্লাহ, চান্দগাঁও থানার এসআই মফিজ উদ্দিন আহত হন। তিনি আরও বলেন, পুলিশের ওপর হামলা ও আসামি ছিনিয়ে নেয়ার ঘটনায় বোয়ালখালী থানায় মামলা করা হয়েছে। এছাড়া অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় সাইফুদ্দিনসহ কয়েকজনকে আসামি করে বায়েজিদ থানায় মামলা করা হয়। সাইফুদ্দিনকে ফের গ্রেফতারে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ।

Comments

comments

SHARE